1. info@gaibandhaexpress.news : Farhan :
শনিবার, ২৫ জুন ২০২২, ০৮:১৩ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম:
পলাশবাড়ী পৌরসভার ৩৬ কোটি টাকার বাজেট ঘোষণা শাহজালালে ৮টি সোনার বারসহ নারী যাত্রী আটক ঘরের মায়ায় ফিরে এসে ডুবে মরলেন বাহার! পরকীয়া না করার শর্তে স্ত্রীর কাছে ৬ লাখ টাকা দাবি সাদুল্লাপুরে ঘাঘট ব্রিজের ধ্বসে পড়া সড়ক পরির্দশনে এলজিইডি’র নির্বাহী প্রকৌশলী কাপ্তাই হ্রদে ডুবে নিথর হলো ২ বন্ধু গর্ভবতী নারীকে হত্যায় মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত আসামি গ্রেফতার গাইবান্ধার ডেভিট কোম্পানী পাড়ায় শহর রক্ষা বাঁধে ধস হুমকির মুখে এলাকাবাসীর ঘরবাড়ী গাইবান্ধায় পানি বন্দি মানুষের সংখ্যা বাড়ছে : চলমান রয়েছে জেলা প্রশাসনের ত্রান সহায়তা কার্যক্রম ইসলামিক ফাউন্ডেশনের উদ্যোগে গাইবান্ধায় প্রশিক্ষন কর্মশালা অনুষ্ঠিত।

লাঠি হাতে পশু প্রানী শূন্য সুন্দরবন ভ্রমনের অভিজ্ঞতা

তানভীর রহমান
  • Update Time : শনিবার, ২৯ জানুয়ারী, ২০২২
  • ১২১ Time View
গাইবান্ধা জেলার পলাশবাড়ী উপজেলার রিপোর্টাস ইউনিটি পলাশবাড়ীর প্রতিবছরের ন্যায় এ বছর শীতকালিন ভ্রমন বিলাসের অংশ হিসাবে সুন্দরবন ভ্রমনের সিদ্ধান্ত গ্রহন করা হয়।
২৬ জানুয়ারী রাত্রিতে পলাশবাড়ী হতে সংগঠনটির ১২ সদস্যের মধ্যে ৭ জন সদস্য এ ভ্রমনে অংশ নেন। মেট্রোপলিটন নামক গাড়ীতে চড়ে রওনা দিয়ে টিমটি পৌছায় মংলা পোর্ট এলাকায় সেখানে ২৭ জানুয়ারী সকালে পৌছে প্রথমে ফ্রেস হয়ে তারপর খাওয়া দাওয়া করে কিছু সময় সুন্দরবন সম্পর্কে গাইডদের বক্তব্য ও অভিজ্ঞতা শুনে ভ্রমনের চাহিদা কমতে শুরু করে। এর প্রথম কারণ সুন্দরবন ভ্রমনে লঞ্চ প্যাকেজ ছাড়া সুন্দরবন ভ্রমন অতৃপ্ত থাকবে। তবুও এরমধ্যে সিদ্ধান্ত নেওয়া হয় মংলার নিকস্থ করমজল এলাকায় সুন্দরবনের প্রাকৃতিক দৃশ্য উপভোগ করার। রিপোর্টাস ইউনিটি পলাশবাড়ীর ৭ সদস্যের মাঝে যারা ছিলেন তারা হলেন সভাপতি আশরাফুল ইসলাম, সহ সভাপতি মিজানুর রহমান মিলন মন্ডল,সাধারণ সম্পাদক শহিদুল ইসলাম, সহ সাধারণ সম্পাদক আব্দুল মান্নান শেখ রানা, ক্যাশিয়ার আব্দুর রাজ্জাক,প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক আসলাম আলী,দপ্তর সম্পাদক সাহারুল ইসলাম।
সিদ্ধান্ত অনুযায়ী টিমটি ঘাটে এসে একটি ট্রলার ভাড়ায় চুক্তি করে পশুর নদীর উপর দিয়ে করমজল এলাকায় চলে আসে। সেখানে এসে চাপতাই রেঞ্জের আওতায় করমজল পর্যটন কেন্দ্র সুন্দরবনের পশুর নদীর তীরে অবস্থিত। বন বিভাগের তত্ত্বাবধানে মংলা সমুদ্র বন্দর থেকে প্রায় আট কিলোমিটার দূরে ৩০ হেক্টর জমির উপর পর্যটন কেন্দ্রটি গড়ে তোলা হয়েছে। এছাড়াও এখানে কুমির প্রজনন কেন্দ্র হিসাবে কুমির প্রজনন করা হচ্ছে। প্রকৃতির শোভা বাড়াতে এখানে রয়েছে বন্দি অবস্থায় রয়েছে কুমির, হরিণ, মুক্ত রয়েছে রেসাস বানর সহ নানা প্রজাতির পশুপাখি। এছাড়াও নির্মিত হয়েছে কাঠের ট্রেইল এবং টাওয়ার। তবে কুমির,হরিণ রয়েছে বন্দিদশায় আর অন্যান্য পশু পাখি বিলুপ্ত প্রায়। তবে নদীতে কুমির দেখা না গেলেও রয়েছে ভোদল,বড় বড় গুই সাপ এছাড়াও বনের এপাশে ও পাশে রয়েছে রোগাক্রান্ত রেসাস বানর।
বনের মাঝে কাঠের সাকো থেকে নিচে নামার নিষেধাজ্ঞা থাকলেও অবশেষে নিচ দিয়েই বনের মাঝে হাটতে হয় পর্যটকদের এর কারণ সাকোর নির্মাণ কাজ চলমান। নাম মাত্র গান ম্যান নিতে হয় যে গান ম্যান এর কোন প্রয়োজন হয় না সুন্দরবনের এ ধারে তবুও পর্যটকদের দিতে হয় গানম্যান বাবদ টাকা। যে টাওয়ারের আশায় এ অঞ্চলে পর্যটক রা আসেন সেই টাওয়ার হতে দূরের কোন দৃশ্য দেখা না গেলেও নামমাত্র টাওয়ার হিসাবে দাড়িয়ে রয়েছে। এরপর স্থানীদের নিকট ও প্যাকেজ ভ্রমন গ্রহনকারী পর্যটকগণ বলেন,বনের এ অঞ্চলেই কেবল দেখা মেলে পশুপাখির তাছাড়া গোটা সুন্দরবন যেখানে যাওয়া ও দেখা যায় শুধু পানি,আর মাছ,ভোদল,বড় গুইসাপ, বানর, কিছু পাখি ছাড়া আর কিছু চোখে পরবে না। আর একটি বিষয় যোগ হবে তা হলো প্যাকেজ গ্রহন করে নদী ও সাগরের পাড়ে লঞ্চে ২ রাত্রি যাপনের ও ৩ দিনের পানি ও বন পথ ভ্রমনের।
রিপোর্টাস ইউনিটি টিম সুন্দরবনের খালে ও বনের ভিতরে পায়ে হেটে ভ্রমন শেষে আবারো ট্রলারে উঠে মংলার পথে রওনা সন্ধ্যায় সেখানে এসে আবারো মেট্রোপলিটন গাড়ীতে উঠে পলাশবাড়ীর উদ্দেশ্যে রওনা দেওয়ার পর ২৮ জানুয়ারী সকালে পলাশবাড়ীতে এসে নেমে নিজ নিজ পরিবারের কাছে পৌছেছে রিপোর্টাস ইউনিটি টিমটি।

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published.

More News Of This Category
© All Rights Reserved © 2021 Gaibandha Express
Theme Customized BY LatestNews